সংবাদ শিরোনাম
Home / শেয়ারবাজার / মুখে কালো কাপড় বেঁধে বিনিয়োগকারীদের মানববন্ধন

মুখে কালো কাপড় বেঁধে বিনিয়োগকারীদের মানববন্ধন

পুঁজিবাজারে ধারাবাহিক দরপতনের প্রতিবাদে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন করেছেন বিনিয়োগকারীরা। এবারই প্রথম কোন ব্যানার ও শ্লোগান ছাড়াই মানববন্ধন করেছেন বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের বিনিয়োগকারীরা। শেয়ারবাজারে কারসাজি করে যারা কোটি কোটি টাকা পুঁজিবাজার থেকে তুলে নিচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানানো হয়েছে মানববন্ধনে।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) মতিঝিলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সামনে মানববন্ধনে বাংলাদেশ বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি এ. কে. এম মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী বলেন, আমাদের মুখে তালা লাগিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে আমাদের ধ্বংস করে দিচ্ছে। তাই আজ আমাদের এই মানববন্ধন। বিনিয়োগকারীদের দাবি, এই নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে দ্রুত অপসারণরর মাধ্যমে পুঁজিবাজারের আস্থা ফিরিয়ে এনে মুজিববর্ষকে সফল করা হোক।

তিনি বলেন, যেখানে বাজার মূলধন ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা, সেখানে প্রতিদিন ২০০ থেকে ৩০০ কোটি টাকার ট্রেড হয়, এর চেয়ে লজ্জার আর কিছু নেই। এই মুহূর্তে সূচক ৫ হাজার ৪০০ থেকে ৪ হাজার ২০০ তে নেমে এসেছে। এগুলো সব বাজার কারসাজির কুফল।

কে. এম মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী বলেন, গত ১০ বছর ধরে লুটপাটের মাধ্যমে পুঁজিবাজারকে ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে। বার বার আশা নিয়ে বাজারমুখী হলেও বিনিয়োগকারীদের সেই একই পতনের চিত্র দেখতে হচ্ছে। নীতি নির্ধারণী মহল বৈঠকের নাম দিয়ে শুধু আইওয়াশ দেখিয়ে আসছে। এভাবে চলার চেয়ে পুঁজিবাজারের লেনদেন বন্ধ করে দেওয়াই উত্তম বলে জানান তিনি।

সাধারণ বিনিয়োগকারী, ব্রোকারেজ হাউজ, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ, বাংলাদেশ সিকিউরিটি অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে নিয়ে যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য অর্থমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানান এ. কে. এম মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালের ধসের পর থেকেই থেমে থেমে পতন চলছে পুঁজিবাজারে। সাম্প্রতিক সময়ে এই পতন তীব্রতম হয় উঠেছে। গত চারদিনে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ২৩২ পয়েন্ট বা ৫ শতাংশ। আর গত এক বছরে এই সূচক কমছে ১ হাজার ১৫৭ পয়েন্ট বা প্রায় ২১ শতাংশ। টানা দরপতনে সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন অসংখ্য বিনিয়োগকারী। ব্রোকারহাউজ, মার্চেন্ট ব্যাংকসহ অনেক মধ্যবর্তী প্রতিষ্ঠানের অবস্থাও নাজুক হয়ে পড়েছে। টিকে থাকার জন্য বাধ্য হয়ে অনেক প্রতিষ্ঠান কর্মী ছাঁটাই করে ব্যয় কমানোর চেষ্টা করছে।

About নিজস্ব প্রতিবেদক

এ সম্পর্কিত আরো খবর

এস এস স্টীলের ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ অনুমোদন

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এস এস স্টীল লিমিটেড ২০১৮-১৯ অর্থবছরে কোম্পানিতে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ বোনাস ও …

মঙ্গলবার পুঁজিবাজারে লেনদেন বন্ধ

দেশের উভয় পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) আগামী মঙ্গলবার লেনদেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *