সংবাদ শিরোনাম
Home / অর্থনীতি / হাসতে হাসতে আমি হার্টফেল করলে অর্থমন্ত্রী দায়ী: রিজভী

হাসতে হাসতে আমি হার্টফেল করলে অর্থমন্ত্রী দায়ী: রিজভী

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী হাসতে হাসতে হার্টফেল করলে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল দায়ী থাকবেন বলে মন্তব্য করেছেন। তিনি বলেন, ‘স্বস্বীকৃত ১ নম্বর অর্থমন্ত্রীই দেশের অর্থনীতির বারোটা বাজিয়েছেন।’

সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। তার কথায় , ‘স্বস্বীকৃত ১ নম্বর অর্থমন্ত্রীই দেশের অর্থনীতির বারোটা বাজিয়েছেন।’

রিজভী বলেছেন, ‘কয়েকদিন আগে অর্থমন্ত্রী বলেছেন, তিনি বিশ্বের এক নম্বর অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রীর এই কথা চিরকুটে লিখে রাখলাম। হাসতে হাসতে হার্টফেল করলে অর্থমন্ত্রী দায়ী থাকবেন। তার এই বক্তব্য অজ্ঞাতপ্রসূত নয়, রাজনৈতিক ধান্দাবাজপ্রসূত। অর্থমন্ত্রী এই বক্তব্যের পরের দিনই আবার বলেছেন, দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা খুবই খারাপ।

আওয়ামী লীগের নেতাদের ইঙ্গিত করে রিজভী বলেন, ‘এখন প্রতিদিন খবরের কাগজ খুললে দেখবেন দুই-আড়াই কোটি নয়, শত শত, হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করছে আপনাদের দলের লোকজন। বিদেশে বেগম পল্লী, সেকেন্ড হোম বানাচ্ছে। ঘরে ঘরে টাকশাল বানাচ্ছে। বিদেশে পাচার করছে। দেশের অর্থনীতি ফোকলা করে ফেলেছেন আপনারা। সংসদে দাঁড়িয়ে আপনাদের অর্থমন্ত্রী স্বীকার করছেন, দেশের অর্থনীতির অবস্থা খুবই খারাপ। গত দুই দিন আগে টিআইবি সাংবাদিক সম্মেলন করে বলেছে-বাংলাদেশে দুই লাখ অবৈধ বিদেশি কাজ করে। যেখানে দেশের প্রায় অর্ধেক জনগোষ্ঠী বেকার সেখানে বাংলাদেশে অবৈধ বিদেশিদের কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে সরকার। সরকার বলছে, দেশে একজনও বেকার থাকবে না। কিন্তু দেশের বেকারদের কথা চিন্তা মাথায় না নিয়ে অবৈধভাবে দেশে আসা বিদেশিদের কাজ করার সুযোগ দিয়ে বেকার তৈরির কারখানা তৈরি করেছে সরকার।’

ক্ষমতাসীন দলের নেতারা আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়ে গেছেন মন্তব্য করে তিনি বলেন, আপনাদের দলের ছিঁচকে নেতাও এখন অবৈধ শত কোটি টাকার মালিক। তাদের শাস্তি হয় না। মামলা হলে দায়মুক্তি দেয় দুদক।

খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে আটকে রাখা হয়েছে দাবি রিজভী বলেন, যে নেত্রী একটি টাকাও তসরুপ করেননি, তাঁকে শুধু রাজনৈতিক প্রতিহিংসাপরায়ণতার শিকার বানিয়ে সম্পূর্ণ বিনা অপরাধে হত্যার জন্য জেলে রাখা হয়েছে। তিনি এ দেশের ১৭ কোটি মানুষের কাছে নিকট সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী। সেজন্য আওয়ামী লীগ প্রধান ও তাঁর সাঙ্গপাঙ্গরা হিংসা-প্রতিহিংসার আগুনে জ্বলছেন। গণমানুষের প্রাণাধিক প্রিয় দেশনেত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র বন্ধ করে মুক্তি দিন। অন্যথায় আপনাদের করুণ পরিণতির দিন ঘনিয়ে আসছে।

About সময় এক্সপ্রেস নিউজ ডেস্ক

এ সম্পর্কিত আরো খবর

পাপিয়ার সঙ্গে অপকর্মে জড়িতরা দ্রুতই ধরা পড়বে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানিয়েছেন, নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নুর …

মোদিকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়া হবে না (ভিডিও)

দিল্লিতে মুসলমানদের উপর হামলার প্রতিবাদে বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেইটে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ইসলামী সমমনা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *